Saturday, September 23, 2017

হলি আর্টিজান হামলার এক বছর

দেশের ইতিহাস সবচেয়ে নৃশংস ও ভয়াবহ জঙ্গি হামলার এক বছর আজ। গত বছরের পয়লা জুলাই গুলশানের হলি আর্টিজান বেকারিতে হামলা চালিয়ে ১৭ বিদেশিসহ ২০ জনকে হত্যা করে জঙ্গিরা। প্রতিরোধের সময় মারা যান দুই পুলিশ কর্মকর্তা। যদিও এক বছরেও তদন্ত শেষ হয়নি হলি আর্টিজান হামলার। কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিট বলছে, ওই ঘটনায় সরাসরি জড়িত ৮জন এখন পর্যন্ত নিহত হয়েছে বিভিন্ন অভিযানে, গ্রেপ্তার করা হয়েছে ৪জনকে। আরও ৫ জনকে গ্রেপ্তার করতে পারলে শেষ হবে তদন্ত।

মুসলামানদের জন্য পবিত্র মাস রমজান। অথচ গত বছর রমজান মাসেই ইফতারের পরপর গুলশানের হলি আর্টিজান বেকারিতে হামলা চালায় জঙ্গিরা। ৫ জঙ্গি অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে হত্যা করে ১৭ বিদেশিসহ ২০ জনকে। এছাড়া পরে নিহত হয় আরো ২ জন। জঙ্গিদের গ্রেনেডে নিহত হন বনানী থানার ওসি সালাহউদ্দিন ও গোয়েন্দা পুলিশের এসি রবিউল ইসলাম। উৎকন্ঠা আর আশংকার সেই রাতের পর ভোরে যৌথ অভিযানে নিহত হয় ৫ জঙ্গিসহ ৬ জন।

দেশ বিদেশে আলোড়িত হলি আর্টিজান হামলার পর জঙ্গি নিধনে ঝাপিড়ে পড়ে দেশের আইন শৃংখলাবাহিনী। ঢাকা থেকে শুরু করে দেশের বিভিন্ন স্থানে একেরপর এক অভিযানে নিহত হয় অর্ধশতাধিক জঙ্গি। আইনশৃংখলা বাহিনীর দাবি, এদের মধ্যে তামিম চৌধুরী, সারোয়ার জাহান, মারজানসহ অন্তত ৮জন সরাসরি জড়িত ছিলো হলি আর্টিজান হামলার সাথে।

কখনোই গ্রেফতার না হওয়া জঙ্গি সোহেল মাহফুজ, রাশেদ ওরফে র‍্যাশ এবং বাশারুজ্জামান চকলেটকে গ্রেফতারে জোর চেষ্টা চলছে। হামলার আগে গাইবান্ধার একটি চরে ২৮ দিন নিবরাসদের প্রশিক্ষণ করানো হয়। তদন্তে এমন তথ্য বেরিয়ে এসেছে বলে জানান তিনি।

নিজেদের অস্তিত্ব জানান দিতেই হলি আর্টিজানে বিদেশিদের হত্যা করা হয়। তবে এ মুহূর্তে তাদের বড় কিছু করার সামর্থ্য নেই বলে দাবি কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিটের।

হলি আর্টিজানে হামলায় নিহতদের ময়নাতদন্ত প্রতিবেদন গত ১৯ জুন হাতে পেয়েছে তদন্ত দল। কিন্তু নিহত ৫ জঙ্গির ময়নাতদন্ত প্রতিবেদন এখনো পাওয়া যায়নি বলে জানান কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিটের প্রধান।

Last modified on 01-07-2017 02:16:34 PM

চ্যানেল 24

387 South, Tejgaon I/A
Dhaka-1208, Bangladesh
Email: newsroom@channel24bd.tv
Tel: +8802 550 29724
Fax: +8802 550 19709

Save

Save

Like us on Facebook
Satellite Parameters
Webmail

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save