Friday, July 28, 2017

728x90

মোবাইল কোর্টে সংরক্ষিত হতোনা ভোক্তার অধিকার

শুরু থেকে মোবাইল কোর্ট বা ভ্রাম্যমাণ আদালতের বিপক্ষে ছিলেন ক্ষুদ্র ও মাঝারী ব্যবসায়ীরা। তাদের অভিযোগ, সঠিকভাবে পরিচালিত হয় না এসব অভিযান। একই মত ভোক্তা অধিকার সংগঠন-ক্যাবেরও। বিশেষজ্ঞরা মনে করেন, মোবাইল কোর্ট নয়, বরং নতুন প্রাতিষ্ঠানিক কাঠামোয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণে সরকারের কাজ করা উচিত।

আইনশৃঙ্খলা রক্ষা এবং অপরাধ প্রতিরোধ কার্যক্রম জোরদার করতে, ২০০৯ সালে তৈরি হয় মোবাইল কোর্ট আইন। কিছু অপরাধ ঘটনাস্থলে তাৎক্ষণিকভাবে আমলে নিয়ে দণ্ড দেয়ার সীমিত ক্ষমতা দেয়া হয় এই আদালতকে। আর এই আদালত পরিচালনা করতেন একজন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট।

পরিসংখ্যান বলছে, গেলো বছর র‍্যাবের পরিচালিত মোবাইল কোর্টে মামলা হয় ৩ হাজার ২৭০টি।  থানায় মামলা হয় ১৬টি। এর মধ্যে মামলা নিষ্পত্তি হয় ৩ হাজার ২৫৬টি। এসব ঘটনায় জরিমানা আদায় হয় ৩৯ কোটি টাকার বেশি। আর জেলে পাঠানো হয় ১৫ হাজার ৮২০ জনকে।

যদিও শুরু থেকেই এই আদালতের কার্যক্রম নিয়ে বিস্তর অভিযোগ ব্যবসায়ীদের। ব্যবসায়ীদের সাথে একমত ভোক্তা অধিকার সংগঠন- ক্যাবের জ্বালানি উপদেষ্টাও। তার মতে, এই আদালতের মাধ্যমে প্রকৃত অপরাধীদের শাস্তি দেয়া যায় না।

ট্যারিফ কমিশনের সাবেক চেয়ারম্যান আজিজুর রহমান মনে করেন, মোবাইল কোর্টের মাধ্যমে নয়, বরং নতুন প্রাতিষ্ঠানিক কাঠামোর মাধ্যমেই ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণে সরকারের কাজ করা উচিত।

যদিও ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনাকারী নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সারওয়ার আলমের দাবি, ভোক্তার অধিকার রক্ষাসহ বিভিন্ন অপরাধ দমনে মোবাইল কোর্ট সফলতার সাথে কাজ করেছে।

এই ম্যাজিস্ট্রেট বলছেন, এবার রোজা সামনে রেখে তাদের পরিকল্পনা ছিলো সমন্বিতভাবে মোবাইল কোর্ট পরিচালনার।





চ্যানেল 24

387 South, Tejgaon I/A
Dhaka-1208, Bangladesh
Email: info@channel24bd.tv
Newsroom: newsroom@channel24bd.tv
Tel: +8802 550 29724
Fax: +8802 550 19709

Save

Like us on Facebook
Satellite Parameters
Webmail

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save