আড়াই মাসে ৪০০ রোহিঙ্গা নিহত, যাদের সবাই জঙ্গি: মিয়ানমার সেনাবাহিনী

রাখাইনে হাজার হাজার রোহিঙ্গা নিহত হবার খবর এলেও মিয়ানমার সেনাবাহিনীর দাবি গেল আড়াই মাসে সেখানে নিহত হয়েছেন মাত্র চারশ জন। যাদের সবাই জঙ্গি। এমন তথ্য দিয়ে ফেইসবুকে একটি তদন্ত প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে, মিয়ানমার সেনাবাহিনী।যাকে ঢাহা মিথ্যা বলছে, মানবাধিকার সংস্থা হিউম্যান রাইটস ওয়াচ। এদিকে, আসিয়ান সম্মেলনে রোহিঙ্গা সংকটের দীর্ঘস্থায়ী সমাধানে এশীয় নেতাদের মানবিক ও রাজনৈতিক উদ্যোগ নেয়ার আহ্বান জানান, জাতিসংঘ মহাসচিব ও কানাডার প্রধানমন্ত্রী।

 

২৫ আগস্ট থেকে রাখাইনে সেনা নিপীড়নে প্রাণ গেছে, কয়েক হাজার রোহিঙ্গার। অ্যামনেস্টি ও হিউম্যান রাইটস ওয়াচের স্যাটেলাইটে ছবি বলছে, জ্বালিয়ে দেয়া হয়েছে, রাখাইনের অন্তত ২৮৮টি গ্রাম। উত্তর রাখাইনের ৬২ ভাগ এলাকাতেই দেয়া হয় আগুন। মিয়ানমারে এই সেনা অভিযানকে, জাতিগত নিধন বলছে জাতিসংঘ।

তাতমাদাও নামে পরিচিত মিয়ানমার সেনাবাহিনীর হাতে রোহিঙ্গা নিপীড়নের ঘটনায়, বিশ্ববাসী সোচ্চার হলেও, বরাবরই অস্বীকার করে আসছে দেশটির সরকার। রাখাইনে চলমান সংঘাতে সরকারি বাহিনী নির্দোষ-এমন সাফাই তুলে সোমবার অভ্যন্তরীণ একটি তদন্ত প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে, মিয়ানমার সেনাবাহিনী। যাতে হত্যা, ধর্ষণ, লুণ্ঠন কিংবা ঘরবাড়িতে আগুন লাগানোর সব অভিযোগ অস্বীকার করে, সেনা কর্তৃপক্ষ। তাদের দাবি, রাখাইনে নিহত হয়েছেন মাত্র ৪শ জন, যাদের সবাই জঙ্গি।   

মিয়ানমার সেনাবাহিনীর এই প্রতিবেদনকে মিথ্যাচার বলছে, হিউম্যান রাইটস ওয়াচ। সত্য  গোপন করছে মিয়ানমার সেনাবাহিনী। তারা কখনোই রোহিঙ্গা নির্যাতন ইস্যুতে তদন্ত বা কাউকে দোষী সাব্যস্ত করতে চায়নি। সহজভাবে বললে, এটা সত্যের অপ্রলাপ। এদিকে, আসিয়ান শীর্ষ সস্মেলনে উত্তাপ ছড়িয়েছে, রোহিঙ্গা ইস্যু। রোহিঙ্গা সংকটের দীর্ঘস্থায়ী সমাধানের লক্ষ্যে এশীয় নেতাদের মানবিক ও রাজনৈতিক উদ্যোগ নেয়ার আহ্বান জানান, জাতিসংঘ মহাসচিব ও কানাডার প্রধানমন্ত্রী। 

রাখাইনে চলমান সংঘাত নিরসনে, একটি টেকসই সমাধানের লক্ষ্যে, আসিয়ান নেতাদের পক্ষ থেকে মানবিক ও রাজনৈতিক উদ্যোগকে সমর্থন দেবো আমরা। একইসাথে প্রতিবেশি দেশে পালিয়ে যাওয়া রোহিঙ্গাদের ফেরাতে মিয়ানমার ও বাংলাদেশ সরকারের সঙ্গেও কাজ করব। 

বাংলাদেশ মুখি লাখো রোহিঙ্গার ঢল, আমাদের চোখে আঙুল দিয়ে দেখিয়ে দিয়েছে, কী চলছে রাখাইনে? এটা গভীর উদ্বেগের এবং দীর্ঘায়িত একটি হৃদয়বিদারক ঘটনা। সংকটের সমাধান না হলে, তা এ অঞ্চলকে অস্থিতিশীল করে তুলবে এবং চরমপন্থি তৎপরতা বাড়বে। তাই, রোহিঙ্গা সংকট সমাধানে আসিয়ান নেতাদের যেকোন কার্যকরি পদক্ষেপকে স্বাগত জানাবে জাতিসংঘ। ১০ জাতির জোটের এ সম্মেলনের সাইডলাইনে মিয়ানমারের রাষ্ট্রীয় কাউন্সিলর অং সান সু চির সঙ্গে বৈঠকও করেছেন, মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ও কানাডার প্রধানমন্ত্রী। 

 

চ্যানেল 24

387 South, Tejgaon I/A
Dhaka-1208, Bangladesh
Email: newsroom@channel24bd.tv
Tel: +8802 550 29724
Fax: +8802 550 19709

Save

Save

Like us on Facebook
Satellite Parameters
Webmail

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save