Sunday, September 24, 2017

১৯ দিনে রোহিঙ্গা শরণার্থীর সংখ্যা ৩ লাখ ৭০ হাজার ছাড়িয়েছে

গেল ১৯ দিনে রাখাইন থেকে আসা রোহিঙ্গা শরণার্থীর সংখ্যা ৩ লাখ ৭০ হাজার ছাড়িয়েছে। আজ এ তথ্য জানিয়েছে, জাতিসংঘের শরণার্থী বিষয়ক সংস্থা- ইউএনএইচসিআর। এ নিয়ে আগামীকাল জরুরি বৈঠক ডেকেছে, জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদ। এই ইস্যুতে নোবেলজয়ী সুচির নেতৃত্ব নিয়ে প্রশ্ন তুলেছে, যুক্তরাষ্ট্র আর যুক্তরাজ্য। আর মিয়ানমারের ওপর অবরোধ আরোপের আহ্বান জানিয়েছেন, ইরানের সর্বোচ্চ ধর্মীয় নেতা। বিশ্বজুড়ে নিন্দার ঝড় বইলেও, মিয়ানমারের নীতির প্রতি সমর্থন জানিয়েছে চীন।

রাখাইন রাজ্যের 'পা দিন' গ্রাম। সোমবার, বার্তা সংস্থা এপির ক্যামেরায় ধরা পড়ে মিয়ানমার নিরাপত্তা বাহিনীর হাতে রোহিঙ্গাদের বসতভিটায় আগুন দেয়ার এমন দৃশ্য। শোনা গেছে, গুলির শব্দও।

এতে প্রাণ ভয়ে বাংলাদেশে আশ্রয় নেয়া রোহিঙ্গার সংখ্যা ৩ লাখ ৭০ হাজার ছাড়িয়েছে। এ তথ্য জানিয়েছেন, জাতিসংঘের শরণার্থী সংস্থার মুখপাত্র জোসেফ ত্রিপুরা। এই ইস্যুতে বুধবার জরুরি বৈঠক ডেকেছে, জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদ।

রাখাইনে রাষ্ট্রীয় নিপীড়নের ঘটনায়, নিন্দার ঝড় বইছে বিশ্বজুড়ে। ভারতের পশ্চিমবঙ্গে মিয়ানমারের ডেপুটি হাইকমিশন ঘেরাও করেন, কংগ্রেসের নেতাকর্মিরা। বিক্ষোভ হয়েছে, ইসরায়েলেও।

ইরানের তেহরানে জাতিসংঘের স্থানীয় অফিস ঘেরাও করে বিক্ষোভ করেন, কয়েক হাজার শিক্ষার্থী। রোহিঙ্গা মুসলিমদের নিধন বন্ধে, মিয়ানমার সরকারের ওপর অবরোধ আরোপের আহ্বান জানিয়েছেন, ইরানের সর্বোচ্চ ধর্মীয় নেতা।

ইরানের সর্বোচ্চ নেতা আয়াতুল্লাহ আলী খামেনি বলেন, 'নৃশংস কর্মকাণ্ডকে সমর্থন দিয়ে অং সান সুচি নোবেল পুরষ্কারকে কবর দিয়েছেন। আমরা মিয়ানমারে সেনা পাঠানোর পক্ষে নই। তবে মুসলিম দেশগুলোর উচিত মিয়ানমার সরকারের উপর রাজনৈতিক ও অর্থনৈতিক চাপ বাড়ানো।'

রোহিঙ্গা ইস্যুতে নোবেলজয়ী সুচির নেতৃত্ব নিয়েও প্রশ্ন তুলেছে, যুক্তরাষ্ট্র এবং যুক্তরাজ্য সরকার।

হোয়াইট হাউসের প্রেস সেক্রেটারি সারাহ হাকাবি স্যান্ডার্স, 'মিয়ানমারে চলমান সহিংসতার ঘটনা প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প নিয়মিত খোজখবর রাখছেন। সেনাবাহিনীর হাতে নিরপরাধ নারী ও শিশু হত্যার ঘটনা উদ্বেগজনক। রোহিঙ্গাদের বাড়িঘরে হামলা এবং সহিংসতার নিন্দা জানায় ওয়াশিংটন। '

ব্রিটিশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী বোরিস জনসন বলেন, 'রোহিঙ্গাদের প্রতি নিরাপত্তা বাহিনীর নির্মমতা, আজ বহির্বিশ্বে মিয়ানমারের ভাবমূর্তিকেই নষ্ট করছে। সুচি ক্ষমতায় আসায় যে সব দেশ বাহবা দিয়েছিল, রোহিঙ্গাদের প্রতি তার সরকারের নিষ্ঠুর আচরণে তারা সবাই হতবাক।'

পশ্চিমা দেশগুলো সুচির ভূমিকার নিন্দা জানালেও, মিয়ানমার সরকারের প্রতি অকুণ্ঠ সমর্থন রয়েছে চীনের। মঙ্গলবার এক বিবৃতিতে দেশটির পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপত্র গেং শুয়াং জানান, শান্তি ও স্থিতিশীলতা রক্ষায় মিয়ানমারের পদক্ষেপকে সমর্থন করে চীন।

Last modified on 12-09-2017 09:03:24 PM

চ্যানেল 24

387 South, Tejgaon I/A
Dhaka-1208, Bangladesh
Email: newsroom@channel24bd.tv
Tel: +8802 550 29724
Fax: +8802 550 19709

Save

Save

Like us on Facebook
Satellite Parameters
Webmail

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save