রোহিঙ্গাদের এখনো দেশ ছাড়তে বাধ্য করছে সেনাবাহিনী: অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল

মিয়ানমার থেকে রোহিঙ্গা শব্দটি চিরতরে মুছে ফেলতে এখনও অভিযান চালিয়ে যাচ্ছে, দেশটির সেনাবাহিনী। নতুন নতুন কৌশল অবলম্বন করছে যাতে রোহিঙ্গারা মিয়ানমার ছাড়তে বাধ্য হয়। অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনালের দেয়া এক বিবৃতিতে উঠে এসেছে এসব তথ্য। সংস্থাটি জানিয়েছে, রোহিঙ্গাদের গবাদিপশু লুট, চাষযোগ্য জমি হরণ, ধর্ষণের ভয় ও পরিকল্পিতভাবে খাদ্য সংকট তৈরি করছে, মিয়ানমার।

এখনো নানাভাবে রোহিঙ্গা নির্যাতন অব্যাহত রেখেছে মিয়ানমার সেনাবাহিনী।

আমাদের খেত-খামার কিছুই নেই। সব কেড়ে নিয়েছে। বিভিন্নভাবে ভয় দেখিয়ে আমাদেরকে তাড়িয়ে দিয়েছে।

মিয়ানমার সরকার এবং বৌদ্ধরা মিলে আমাদের সম্পদ লুট করেছে। খাবার না পেয়ে দিনের পর দিন না খেয়ে থেকেছি।

সম্প্রতি অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল জানায়, রোহিঙ্গা নির্যাতনের নতুন কৌশল নিয়েছে মিয়ানমার। যার মধ্যে রয়েছে পরিকল্পিতভাবে খাদ্যের অভাব সৃষ্টি, অপহরণের ভয়, সম্পদ ছিনিয়ে নেয়া ও ধর্ষণের ভয় দেখানো।

মিয়ানমার সেনারা রোহিঙ্গাদের বাজার পুড়িয়ে দিয়েছে। এমনকি! রোহঙ্গিারা যেন কোন খাবার না পায়, সেজন্য তাদের চাষাবাদ বন্ধ করে দিয়েছে। সেনাদের নির্দেশে অন্য ধর্মের লোকেরা, তাদের গৃহপালিত পশুপাখি জোর করে নিয়ে গেছে।

অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল জানিয়েছে, প্রতিকূল পরিবেশে যাতে রোহিঙ্গারা মিয়ানমার ছাড়তে বাধ্য হয়, সেজন্যই এমন জঘন্য উপায় বেছে নিয়েছে দেশটি।

এখনও রোহিঙ্গাদের হত্যা, ধর্ষন এবং ঘরবাড়ি পুড়িয়ে দেয়া অব্যাহত রেখেছে মিয়ানমার সেনারা। এতে রোহিঙ্গারা একেবারে অসহায় হয়ে পড়েছে। তাই খাবারের সন্ধানে অসহায় এই মানুষগুলো বাংলাদেশে চলে আসছে।

গেলো আগস্টের শেষ দিকে শুরু হওয়া এ অভিযানে, এখন পর্যন্ত প্রায় ৭ লাখ রোহিঙ্গা বাংলাদেশে পালিয়ে এসেছে।

Last modified on 10-02-2018 03:31:40 PM

চ্যানেল 24

387 South, Tejgaon I/A
Dhaka-1208, Bangladesh
Email: newsroom@channel24bd.tv
Tel: +8802 550 29724
Fax: +8802 550 19709

Save

Save

Like us on Facebook
Satellite Parameters
Webmail

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save