অ্যান্টি ডাম্পিং শুল্ক: পাট ও পাটজাত পণ্য রপ্তানিতে নেতিবাচক প্রভাব | বিজনেস 24

CHANNEL 24



টপ নিউজঃ
Back প্রচ্ছদ বিজনেস 24 অ্যান্টি ডাম্পিং শুল্ক: পাট ও পাটজাত পণ্য রপ্তানিতে নেতিবাচক প্রভাব

অ্যান্টি ডাম্পিং শুল্ক: পাট ও পাটজাত পণ্য রপ্তানিতে নেতিবাচক প্রভাব

images/news/11-1-2017/pat.png

বাংলাদেশের পাট ও পাটজাত পণ্যে অ্যান্টি ডাম্পিং শুল্ক আরোপে এসব পণ্য রপ্তানিতে নেতিবাচক প্রভাব পড়ছে বলে জানান উদ্যোক্তারা। আর পাট ও বস্ত্র প্রতিমন্ত্রী বিষয়টিকে দু:খজনক অভিহিত করে তা প্রত্যাহারে ভারত সরকারের সাথে আলোচনা করা হবে বলে জানান।

সকালে জুট ডাইভারসিফিকেশন প্রমোশন সেন্টারে এক সংবাদ সম্মেলনে মন্ত্রী জানান, কূটনৈতিক এবং আইনীভাবে এই সমস্যা মোকাবেলা করা হবে। ফেব্রুয়ারিতে প্রধানমন্ত্রীর ভারত সফরে বিষয়টি তুলে ধরা হবে বলেও জানান তিনি। পাশাপাশি খোঁজা হচ্ছে রপ্তানির অন্য বাজার।

বাংলাদেশের পাট ও পাটজাত পণ্যের অন্যতম বাজার পাশ্ববর্তী দেশ ভারত। দেশের মোট পাট রপ্তানির ২০ শতাংশেরও বেশি যায় সেখানে।

তবে বাংলাদেশী উৎপাদকরা পাটে ১০ শতাংশ নগদ সহায়তা ও ৮ শতাংশ শুল্ক দিয়ে ভারতে রপ্তানী করতে পারে। এতে ভারতীয় উৎপাদকরা ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন এমন অভিযোগে অ্যান্টি ডাম্পিং শুল্ক আরোপের দাবি জানানো হয়। তারই প্রেক্ষিতে ভারতের রাজস্ব বিভাগ বাংলাদেশের ৪৩টি মিলে উৎপাদিত পাটজাত পণ্য প্রতি মেট্রিক টনে ১৯ থেকে ৩৫২ ডলার পর্যন্ত শুল্ক আরোপ করে।

এমন সিদ্ধান্তের ফলে বাংলাদেশের পাটপণ্য রপ্তানিতে নেতিবাচক প্রভাব পড়ছে বলে জানান উদ্যোক্তরা। বিষয়টির রাজনৈতিক সুরাহা চান তারা।

বস্ত্র ও পাট প্রতিমন্ত্রী জানান, এই সিদ্ধান্তের ফলে দেশের প্রায় ১ লাখ টন পাট রপ্তানি ঝুঁকির মধ্যে পরবে। এর বিরুদ্ধে ৯০ দিনের মধ্যে আপিল করা যাবে বলেও জানান তিনি।

বিষয়টি কূটনৈতিক এবং আইনীভাবে মোকাবেলার প্রস্তুতি নেয়া হচ্ছে বলেও জানান তিনি।

তবে প্রতিমন্ত্রীর আশা ভারতের ব্যবসায়ীরা নিজেদের প্রয়োজনেই হয়তো তাদের অভিযোগ তুলে নেবেন, আর শিগগিরই স্বাভাবিক হবে সংকট।