Print this page

দাওরায়ে হাদিসের স্বীকৃতি নিয়ে বিতর্ক

কওমি মাদ্রাসার দাওরায়ে হাদিস শ্রেণির সনদের সরকারি স্বীকৃতি নিয়ে দেখা দিয়েছে বিতর্ক। সরকারের সিদ্ধান্তে এই শিক্ষার সাথে সংশ্লিষ্টরা খুশি হলেও, ক্ষুব্ধ সুন্নি আলেমরা। তাদের দাবি, যাচাই-বাছাই ছাড়া কওমি শিক্ষা সনদের স্বীকৃতি, আলিয়া মাদ্রাসাগুলোকে সংকটে ফেলবে। এজন্য সব মাদ্রাসা নিয়ে অভিন্ন বোর্ড গঠনের দাবি তাদের। তবে কওমি সংশ্লিষ্টদের মতে, সরকারের এই স্বীকৃতি তাদের শিক্ষার্থীদের মৌলিক অধিকার পূরণে সহায়ক হবে।

দেওবন্দি মতাদর্শী কওমি মাদ্রাসা শিক্ষার ইতিহাস প্রায় দেড়শবছরের। যদিও এই শিক্ষার এতদিন কোন সরকারি স্বীকৃতি ছিল না বাংলাদেশে। এরমধ্যে শুধু দাওরায়ে হাদিসকে স্নাতকোত্তর মর্যাদা দেয়া হয়েছে গেল সপ্তাহে।

সরকারি এই সিদ্ধান্ত নিয়ে চলছে নানামুখি আলোচনা। এই শিক্ষা সংশ্লিষ্টরা এমন সিদ্ধান্তে খুশি হলেও তার বিরোধীতায় মাঠে নেমেছেন সুন্নীত আলেমরা। করছেন আন্দোলন। তাদের মতে, এই স্বীকৃতি ধর্মীয় শিক্ষায় আরও বিশৃংখলা বাড়াবে। যদিও তা মানতে নারাজ কওমি মাদ্রাসা বোর্ড।  

তবে দাওরায়ে হাদিস মর্যাদা পেলেও স্বীকৃতির বাইরে থেকে গেছে নিচের স্তরের সবশ্রেণী। সেই স্বীকৃতি চাননা কওমি নেতারাও।

এদিকে, সব মাদ্রাসার জন্য অভিন্ন নীতি ও একই বোর্ডের অধীনে পরীক্ষা নেয়ার ব্যবস্থা চান সুন্নী আলেমরা।

সরকারি হিসাব অনুসারে দেশে কওমি মাদ্রাসার সংখ্যা ১১ হাজার ৯শ। এসব মাদ্রাসায় পড়ালেখা করছে ১৪ লাখ শিক্ষার্থী।
বিস্তারিত নিচের ভিডিওতে...

Last modified on 02-05-2017 04:50:55 PM