Print this page

খোলাবাজারে চাল বিক্রি হলেও চাহিদার সংকটে সিদ্ধ চাল

একদিকে দেয়া হচ্ছে না চাহিদা অনুযায়ী সিদ্ধ চাল। অন্যদিকে তদারকির অভাব আর অব্যবস্থাপনার অভিযোগ। এমন অবস্থার মধ্যে খাগড়াছড়িতে চলছে ওএমএস এর নায্য মূল্যের চাল বিক্রি কর্মসূচি। ফলে সরকারি উদ্যোগের সুফল ভোগ করতে পারছে না সাধারণ মানুষ। এদিকে, কোন ধরনের অনিয়ম প্রমাণিত হলে কঠোর ব্যবস্থার কথা জানিয়েছে প্রশাসন।

 

মূল্য স্থিতিশীল রাখতে দেশব্যাপি কর্মসূচির অংশ হিসেবে খাগড়াছড়িতেও চলছে খোলাবাজারে চাল বিক্রি কার্যক্রম। এতে খাদ্য অধিদপ্তরের পক্ষ থেকে দেয়া হচ্ছে আতপ চাল। তবে জেলার অধিকাংশ এলাকায় সিদ্ধ চালের চাহিদা থাকায় স্থানীয়দের অনেকে বাজার থেকে চড়া দামে সে চালই কিনছেন। 

এদিকে, খাদ্য অধিদপ্তরের বাজার মনিটরিং কর্মকর্তার উপস্থিতিতে খোলা বাজারে চাল বিক্রির নিয়ম থাকলেও, ঘটছে তার ব্যত্যয়। ফলে সরকারের এমন কর্মসূচির সুফল থেকে বঞ্চিত হচ্ছে সাধারণ মানুষ। খাদ্য বিভাগের এই কার্যক্রমকে সাধুবাদ জানিয়ে সঠিকভাবে মনিটরিংয়ের দাবি জানিয়েছেন বিশিষ্টজনেরা।

এদিকে, খোলা বাজারে চাল বিক্রিতে কোন অনিয়মকে প্রশ্রয় না দেয়ার কথা জানিয়েছেন খাদ্য নিয়ন্ত্রণ কর্মকর্তা। আর গাফিলতির প্রমাণ পেলে কঠোর ব্যবস্থার হুঁশিয়ারি জেলা প্রশাসকের।