ফারাক্কা বাঁধ: অকাল বন্যা আর খরার দুর্ভোগে উত্তরের মানুষ

ঐতিহাসিক ফারাক্কা দিবস আজ। ১৯৭৫ সালে ফারাক্কা বাঁধ চালুর পর থেকে বর্ষায় বাঁধের গেট খুলে দেয় ভারত। আর শুষ্ক মৌসুমে পানি প্রত্যাহারের ফলে প্রতি বছরই অকাল বন্যা আর খরার সম্মুখিন হতে হয় চরাঞ্চলের মানুষদের। পানির হিস্যা পেতে বিভিন্ন সময় সমঝোতা ও চুক্তি হলেও বদলায়নি চাঁপাইনবাবগঞ্জের মানুষের কষ্ট। এতে পাল্টে যাচ্ছে ক্ষতিগ্রস্ত এলাকাগুলোর মানচিত্র।

কখনও বন্যা, কখনও খরা। সাথে নদী ভাঙনের দুর্ভোগ। ফারাক্কা বাঁধের কারণে এমন পরিস্থিতি, চাঁপাইনবাবগঞ্জের চরাঞ্চলে।

১৯৭৫ সালে এই বাঁধ চালু করে, ভারত। প্রতিবাদে পরের বছর ১৬ মে মজলুম জননেতা মওলানা আব্দুল হামিদ খান ভাসানির নেতৃত্বে রাজশাহী থেকে শুরু হয়, লংমার্চ। এতে অংশ নেন, হাজারো মানুষ। যা চাঁপাইনবাবগঞ্জের কানসাটে গিয়ে শেষ হয়।

বাঁধ নির্মাণের আগে-পরে পানি বণ্টনে বেশ কিছু সমঝোতা ও চুক্তি হলেও; বদলায়নি চিত্র। বরং গতিপথ বদলে বিভিন্ন চ্যানেলে বিভক্ত হয়ে গেছে পদ্মা। পানির ন্যায্য হিস্যা পেতে, আন্তর্জাতিক ফোরামে বিষয়টি তোলার কথা বলছেন, বিশ্লেষকরা।

চাঁপাইনবাবগঞ্জের পাংখা পয়েন্ট থেকে রাজশাহীর গোদাগাড়ি পর্যন্ত পদ্মা নদীর দৈর্ঘ্য প্রায় ৪১ কিলোমিটার। যাতে বাস করেন, পাঁচ লাখের বেশি মানুষ।

Last modified on 16-05-2018 01:27:20 PM

চ্যানেল 24

387 South, Tejgaon I/A
Dhaka-1208, Bangladesh
Email: newsroom@channel24bd.tv
Tel: +8802 550 29724
Fax: +8802 550 19709

Save

Save

Like us on Facebook
Satellite Parameters
Webmail

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save