তাপমাত্রা ও বৃষ্টিপাতের হেরফেরে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন নীলফামারীর আলুচাষীরা

তাপমাত্রা ও বৃষ্টিপাতের হেরফেরে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন নীলফামারীর আলুচাষীরা। আবহাওয়ার সাথে তাল মেলাতে না পারায়, এ জেলায় গতবছর অর্জিত হয়নি আলু উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা। আলুবীজ বপণে দেরী হওয়ায় তিন ফসলী জমিগুলো দুই ফসলীতে নেমে আসারও আশঙ্কা করছেন কৃষকরা। এই অবস্থার জন্য জলবায়ু পরিবর্তনকে দায়ী করছেন কৃষিবিদরা।

উত্তরের জেলাগুলোয় আগাম ও স্বাভাবিক মিলিয়ে বছরে তিনবার আলুর আবাদ হয়। অনুকূল আবহাওয়ার কারণে সরকারিভাবে আলুবীজ গবেষনা ও উৎপাদন খামারগুলোও এই অঞ্চলে অবস্থিত। কিন্তু সাম্প্রতিক বছরগুলোতে শীতকালীন ও দিন-রাতের তাপমাত্রায় ব্যবধান যেমন বেড়ে গেছে, তেমনি আকস্মিক বৃষ্টিও ভোগান্তিতে ফেলছে কৃষকদের। তারা বলছেন, জমিতে রস থাকায় আলু লাগাতে দেরি হচ্ছে।

শীত আসছে ধীরে। ফলে শীতের চাষবাসও গতি হারিয়েছে। এ অবস্থা চলতে থাকলে তিন ফসলী জমিগুলো দুই ফসলীতে পরিণত হয় কি না, সেই আশঙ্কাও রয়েছে কৃষকের। তবে যারা আবহাওয়ার তোয়াক্কা না করে আলু লাগিয়েছেন, তাদের অনেকের গাছে দেখা দিয়েছে গোড়া পঁচা রোগ।

কৃষিবিদরা বলছেন, ফসলের সঙ্গে আবাহাওয়ার সম্পর্ক নিবিড়। কিন্তু জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে উত্তরের যে মরুকরণ শুরু হয়েছে, তার প্রভাব পড়ছে আলু আবাদে। তাই এখন থেকে দিনের অতিরিক্ত আলো এড়াতে, ভোরবেলায় আলু লাগানোর পরিকল্পনা করেছেন তারা।

তবে, শুধু আলু নয়, জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে নীলফামারীতে শীতকালীন শাক-সবজির উৎপাদনও কমে গেছে বলে দাবি করলেন, জেলার কৃষি সম্প্রসারণ কর্মকর্তা। তারা এখন তাপ-সহনশীল বীজের আশায় দিন গুণছেন।

কৃষি বিভাগ বলছে, নীলফামারী জেলায় গত বছর আলুর আবাদ লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে অন্তত ১৮ হাজার মেট্রিক টন কম উৎপাদন হয়েছে।

চ্যানেল 24

387 South, Tejgaon I/A
Dhaka-1208, Bangladesh
Email: newsroom@channel24bd.tv
Tel: +8802 550 29724
Fax: +8802 550 19709

Save

Save

Like us on Facebook
Satellite Parameters
Webmail

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save